খাদিজার রা মৃত্যু | খাদিজা (রা) ও আবু তালিবের মৃত্যু | মহানবী হযরত মুহাম্মদ ( সাঃ ) জীবন

খাদিজার রা মৃত্যু | খাদিজা (রা) ও আবু তালিবের মৃত্যু, মক্কার বাইরের উপত্যকায় প্রায় আড়াই বছর কাটানোর পর বয়কট শেষ হলে নবিজি (সা) ও অন্যরা মক্কায় ফিরে আসেন। সময়টা ছিল দাওয়াতের ১০ম বছর। ফেরার সঙ্গে সঙ্গে নবিজির (সা) জীবনে তিনটি বড় বিপর্যয়কর ঘটনা ঘটে: চাচা আবু তালিবের-মৃত্যু, স্ত্রী খাদিজার (রা) মৃত্যু এবং তায়েফের ঘটনা। এসব কারণে পুরো বছরটিকে ‘আম আল-হুজান’ (দুঃখের বছর) বলে অভিহিত করা হয়।

 

খাদিজার রা মৃত্যু | খাদিজা (রা) ও আবু তালিবের মৃত্যু | মহানবী হযরত মুহাম্মদ ( সাঃ ) জীবন

 

খাদিজার রা মৃত্যু | খাদিজা (রা) ও আবু তালিবের মৃত্যু | মহানবী হযরত-মুহাম্মদ ( সাঃ ) জীবন

পরের বিপর্যয়ের ঘটনাটি হলো নবিপত্নী খাদিজার (রা) মৃত্যু। আবু তালিবের-মৃত্যুর পরের ৪০ দিনেরও কম সময়ের মধ্যে খাদিজা (রা) মৃত্যুবরণ করেন। তখনও আল্লাহর পক্ষ থেকে মুসলিমদের জন্য নামাজের নির্দেশনা আসেনি। তাই তাঁর জন্য কোনো জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়নি। নবিজি (সা) নিজেই খাজিদাকে (সা) দাফন করার দায়িত্ব নিয়েছিলেন। তিনি নিজেই তাঁকে কবরে নামিয়েছিলেন।

 

islamiagoln.com google news
আমাদের গুগল নিউজে ফলো করুন

 

সাহাবিরা বলেন, “(খাদিজার মৃত্যুর পরে) আমরা কয়েক মাস ধরে নবিজির (সা) মুখে কোনো হাসি দেখিনি।” আবু তালিব ও খাদিজা (রা) ছিলেন নবিজির (সা) জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দুই ব্যক্তি। আবু তালিব নবিজিকে (সা) বাহ্যিকভাবে সুরক্ষা দিয়েছিলেন, আর খাদিজা (রা) তাঁকে মানসিক সুরক্ষা ও নিরঙ্কুশ সমর্থন দিয়েছিলেন। এই দুই প্রিয় ব্যক্তির মৃত্যুতে নবিজি (সা) অপরিসীম কষ্ট পান এবং অনেকটাই মুষড়ে পড়েন। নবি করিম (সা) খাদিজাকে (রা) কী অপিরসীম ভালোবাসতেন তা নিয়ে অনেক বর্ণনা রয়েছে।

 

খাদিজার রা মৃত্যু | খাদিজা (রা) ও আবু তালিবের মৃত্যু | মহানবী হযরত মুহাম্মদ ( সাঃ ) জীবন
খাদিজার রা মৃত্যু | খাদিজা (রা) ও আবু তালিবের মৃত্যু | মহানবী হযরত-মুহাম্মদ ( সাঃ ) জীবন

 

খাদিজার (রা) স্মৃতি নবিজির (সা) মনে এতটাই জাগরুক ছিল যে অনেক বছর পরেও তাঁর স্মরণে তিনি বেদনায় ভারাক্রান্ত হতেন।

আরো পড়ুনঃ

Leave a Comment