সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯ | সূরা বাকারা [ গাভী কুরবানী] সূরা নং ২ । মাদানী সূরা । আল কুরআন

সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯ ,আল বাকারা (আরবি ভাষায়: سورة البقرة) মুসলমানদের পবিত্র ধর্মীয় গ্রন্থ কুরআনের দ্বিতীয় সূরা, এর আয়াত সংখ্যা ২৮৬ টি এবং এর রূকুর সংখ্যা ৪০ টি। আল বাকারা সূরাটি মদিনায় অবতীর্ণ হয়েছে।

সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯

সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯
সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯

সূরা বাকারা

তোমার নিকট তারা জিজ্ঞেস করে নতুন চাঁদের বিষয়ে। বলে দাও যে এটি মানুষের জন্য সময় নির্ধারণ এবং হজ্বের সময় ঠিক করার মাধ্যম। আর পেছনের দিক দিয়ে ঘরে প্রবেশ করার মধ্যে কোন নেকী বা কল্যাণ নেই। অবশ্য নেকী হল আল্লাহকে ভয় করার মধ্যে। আর তোমরা ঘরে প্রবেশ কর দরজা দিয়ে এবং আল্লাহকে ভয় করতে থাক যাতে তোমরা নিজেদের বাসনায় কৃতকার্য হতে পার।

They ask you (O Muhammad SAW) about the new moons. Say: These are signs to mark fixed periods of time for mankind and for the pilgrimage. It is not Al-Birr (piety, righteousness, etc.) that you enter the houses from the back but Al-Birr (is the quality of the one) who fears Allâh. So enter houses through their proper doors, and fear Allâh that you may be successful.

يَسْأَلُونَكَ عَنِ الأهِلَّةِ قُلْ هِيَ مَوَاقِيتُ لِلنَّاسِ وَالْحَجِّ وَلَيْسَ الْبِرُّ بِأَنْ تَأْتُوْاْ الْبُيُوتَ مِن ظُهُورِهَا وَلَـكِنَّ الْبِرَّ مَنِ اتَّقَى وَأْتُواْ الْبُيُوتَ مِنْ أَبْوَابِهَا وَاتَّقُواْ اللّهَ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ

Yas-aloonaka AAani al-ahillati qul hiya mawaqeetu lilnnasi waalhajji walaysa albirru bi-an ta/too albuyoota min thuhooriha walakinna albirra mani ittaqa wa/too albuyoota min abwabiha waittaqoo Allaha laAAallakum tuflihoona

সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯
সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯

YUSUFALI: They ask thee concerning the New Moons. Say: They are but signs to mark fixed periods of time in (the affairs of) men, and for Pilgrimage. It is no virtue if ye enter your houses from the back: It is virtue if ye fear Allah. Enter houses through the proper doors: And fear Allah: That ye may prosper.

PICKTHAL: They ask thee, (O Muhammad), of new moons, say: They are fixed seasons for mankind and for the pilgrimage. It is not righteousness that ye go to houses by the backs thereof (as do the idolaters at certain seasons), but the righteous man is he who wardeth off (evil). So go to houses by the gates thereof, and observe your duty to Allah, that ye may be successful.

SHAKIR: They ask you concerning the new moon. Say: They are times appointed for (the benefit of) men, and (for) the pilgrimage; and it is not righteousness that you should enter the houses at their backs, but righteousness is this that one should guard (against evil); and go into the houses by their doors and be careful (of your duty) to Allah, that you may be successful.

KHALIFA: They ask you about the phases of the moon! Say, “They provide a timing device for the people, and determine the time of Hajj.” It is not righteous to beat around the bush; righteousness is attained by upholding the commandments and by being straightforward. You shall observe GOD, that you may succeed.

রুকু – ২৪

সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯
সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯

১৮৯। লোকে তোমাকে নূতন চাঁদ সম্বন্ধে প্রশ্ন করে ২০২। বল, ‘এটি তো [মানুষের কার্যকাল] সময়ের ব্যাপ্তিকালকে নির্দিষ্ট করার চিহ্ন এবং হজ্বের [সময়ের নির্দেশক]। পশ্চাৎ দিক দিয়ে গৃহে প্রবেশে কোন পূণ্য নাই। পূণ্য আছে আল্লাহ্‌কে ভয় করার মধ্যে। সঠিক দরজা দিয়ে গৃহে প্রবেশ কর ২০৩। আল্লাহ্‌কে ভয় কর যেনো তোমরা সফলতা লাভ করতে পার।

২০২। নূতন চাঁদ দেখা সম্বন্ধে অনেক ধরণের কুসংস্কার তখনকার আরব সমাজে চালু ছিল। এখানে আমাদের ঐসব কুসংস্কারকে পরিত্যাগ করতে বলা হয়েছে। মুসলমান সমাজে নূতন চাঁদের গুরুত্ব সমধিক। নূতন চাঁদ অনুযায়ী রোজা শুরু হয়, হজ্ব হয়, ঈদ হয় ইত্যাদি। সে যুগে আরবেরা নূতন চাঁদ দেখে তীর্থ যাত্রার আগে ও পরে বাড়ীর সামনের দরজা দিয়ে প্রবেশ না করে পিছনের দরজা দিয়ে করতো।

এগুলিকে ইসলাম অনুমোদন করে না। ইসলাম ধর্মে কুসংস্কারের স্থান নাই। কুসংস্কার দ্বারা আত্মিক উন্নতি লাভ হয় না। আত্মিক উন্নতির চাবিকাঠি হচ্ছে চারিত্রিক গুণাবলী অর্জন। আর এই গুণাবলীর ভিত্তি হবে আল্লাহ্‌র প্রতি ভালবাসা, আল্লাহ্‌ ভীতি বা ‘তাকওয়া’।

সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯
সূরা বাকারা আয়াত ১৮৯

২০৩। ‘তোমরা [উপযুক্ত] দরজা দিয়ে ঘরে প্রবেশ কর।’ এই লাইনটির বহুজন বহু অর্থ করেছেন। এর কয়েকটি নিম্নরূপ (১) তোমরা যখন কোনও নূতন সমাজে প্রবেশ লাভ করবে এর আচার, আচরণ ও সংস্কৃতিকে শ্রদ্ধা করবে। (২) যদি কোনও উদ্দেশ্য সফল করতে চাও সম্মানজনকভাবে এবং সৎ পথে, তবে তার জন্য আইন অনুযায়ী অগ্রসর হবে, সুবিধা লাভের জন্য ‘পিছনের দরজার [Back Door] আশ্রয় নেবে না।

(৩) কোনও বক্তব্য উপস্থাপনের সময়ে সোজাসুজি উপস্থাপন করবে ‘Do not beat around the bush’। (৪) যদি কোনও কাজে বা মিশনে সাফল্য চাও তবে তার জন্য যত রকম প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব তা গ্রহণ করবে।

আরও দেখুনঃ 

সূরা বাকারা পর্ব ৭ । সূচি । [ গাভী কুরবানী] সূরা নং ২ । পবিত্র কুরআন ।

সূরা বাকারা পর্ব ৬ । সূচি । [ গাভী কুরবানী] সূরা নং ২ । পবিত্র কুরআন ।

সূরা বাকারা পর্ব ৫ । সূচি । [ গাভী কুরবানী] সূরা নং ২ । পবিত্র কুরআন ।

সূরা বাকারা পর্ব ৪ । সূচি । [ গাভী কুরবানী] সূরা নং ২ । পবিত্র কুরআন ।

সূরা বাকারা পর্ব ৩ । সূচি । [ গাভী কুরবানী] সূরা নং ২ । পবিত্র কুরআন ।

সূরা বাকারা পর্ব ২ । সূচি । [ গাভী কুরবানী ] সূরা নং ২ । পবিত্র কুরআন ।

সূরা বাকারা পর্ব ১ । সূচি । [ গাভী কুরবানী ] সূরা নং ২ । পবিত্র কুরআন ।

নাপাকি এবং নাপাকি থেকে পবিত্রতা অর্জনের উপায়

 

 

 

Leave a Comment