সূরা হাজ্জ্ব আয়াত ৪০। হাজ্জ্ব সংক্রান্ত বিষয় । মাদানী সুরা । সূরা ২২। পবিত্র কুরআন

সূরা হাজ্জ্ব আয়াত ৪০: সুরা আল হাজ্জ্ব (আরবি: سورة الحج‎‎, “তীর্থযাত্রা, হজ্জ”) কুরআনের ২২তম সূরা। এই সূরাটি মদীনায় অবতীর্ণ হয়েছে। এর আয়াত সংখ্যা ৭৮। সুরাটি মূলত মুসলমানদের অবশ্য পালনীয় ধর্মীয় কর্ম হাজ্জ্ব এবং হাজ্জ্ব সংক্রান্ত দিকটি বেশি উম্মচিত হয়েছে।

সূরা হাজ্জ্ব আয়াত ৪০

সূরা হাজ্জ্ব আয়াত ৪০। হাজ্জ্ব সংক্রান্ত বিষয় । মাদানী সুরা । সূরা ২২। পবিত্র কুরআন

সূরা হাজ্জ্ব

যাদেরকে তাদের ঘর-বাড়ী থেকে অন্যায়ভাবে বহিস্কার করা হয়েছে শুধু এই অপরাধে যে, তারা বলে আমাদের পালনকর্তা আল্লাহ।

আল্লাহ যদি মানবজাতির একদলকে অপর দল দ্বারা প্রতিহত না করতেন, তবে (খ্রীষ্টানদের) নির্ঝন গির্জা, এবাদত খানা, (ইহুদীদের) উপাসনালয় এবং মসজিদসমূহ বিধ্বস্ত হয়ে যেত, যেগুলাতে আল্লাহর নাম অধিক স্মরণ করা হয়। আল্লাহ নিশ্চয়ই তাদেরকে সাহায্য করবেন, যারা আল্লাহর সাহায্য করে। নিশ্চয়ই আল্লাহ পরাক্রমশালী শক্তিধর।

Those who have been expelled from their homes unjustly only because they said: ”Our Lord is Allâh.”

– For had it not been that Allâh checks one set of people by means of another, monasteries, churches, synagogues, and mosques, wherein the Name of Allâh is mentioned much would surely have been pulled down. Verily, Allâh will help those who help His (Cause). Truly, Allâh is All-Strong, All-Mighty.

সূরা হাজ্জ্ব

الَّذِينَ أُخْرِجُوا مِن دِيَارِهِمْ بِغَيْرِ حَقٍّ إِلَّا أَن يَقُولُوا رَبُّنَا اللَّهُ وَلَوْلَا دَفْعُ اللَّهِ النَّاسَ بَعْضَهُم بِبَعْضٍ لَّهُدِّمَتْ صَوَامِعُ وَبِيَعٌ وَصَلَوَاتٌ وَمَسَاجِدُ يُذْكَرُ فِيهَا اسْمُ اللَّهِ كَثِيرًا وَلَيَنصُرَنَّ اللَّهُ مَن يَنصُرُهُ إِنَّ اللَّهَ لَقَوِيٌّ عَزِيزٌ

Allatheena okhrijoo min diyarihim bighayri haqqin illa an yaqooloo rabbuna Allahu walawla dafAAu Allahi alnnasa baAAdahum bibaAAdin lahuddimat sawamiAAu wabiyaAAun wasalawatun wamasajidu yuthkaru feeha ismu Allahi katheeran walayansuranna Allahu man yansuruhu inna Allaha laqawiyyun AAazeezun

YUSUFALI: (They are) those who have been expelled from their homes in defiance of right,- (for no cause) except that they say, “our Lord is Allah”. Did not Allah check one set of people by means of another, there would surely have been pulled down monasteries, churches, synagogues,

and mosques, in which the name of Allah is commemorated in abundant measure. Allah will certainly aid those who aid his (cause);- for verily Allah is full of Strength, Exalted in Might, (able to enforce His Will).

PICKTHAL: Those who have been driven from their homes unjustly only because they said: Our Lord is Allah – For had it not been for Allah’s repelling some men by means of others, cloisters and churches and oratories and mosques, wherein the name of Allah is oft mentioned, would assuredly have been pulled down. Verily Allah helpeth one who helpeth Him. Lo! Allah is Strong, Almighty –
SHAKIR: Those who have been expelled from their homes without a just cause except that they say: Our Lord is Allah. And had there not been Allah’s repelling some people by others,

certainly there would have been pulled down cloisters and churches and synagogues and mosques in which Allah’s name is much remembered; and surely Allah will help him who helps His cause; most surely Allah is Strong, Mighty.

সূরা হাজ্জ্ব

KHALIFA: They were evicted from their homes unjustly, for no reason other than saying, “Our Lord is GOD.” If it were not for GOD’s supporting of some people against others,

monasteries, churches, synagogues, and masjids – where the name of GOD is commemorated frequently – would have been destroyed. Absolutely, GOD supports those who support Him. GOD is Powerful, Almighty.

৪০। [ এরাই তারা ] যাদের অন্যায় ভাবে তাদের ঘর বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়েছে – শুধু এই কারণে যে, তারা বলে, ” আমাদের প্রভু আল্লাহ্‌।” যদি আল্লাহ্‌ মানুষের একদলকে দিয়ে অন্য দলকে প্রতিহত না করতেন

, ২৮১৭, তবে নিশ্চয়ই ধ্বংস হয়ে যেতো মনেষ্টরি [ খৃষ্টান সংসার বিরাগীদের উপাসনা স্থান ] , গীর্জা , সিনাগগ [ইহুদীদের উপাসনালয় ] এবং মসজিদ সমূহ – যেখানে আল্লাহ্‌র নাম অহরহ স্মরণ করা হয়। নিশ্চয়ই আল্লাহ্‌ তাকেই সাহায্য করেন যে, তাঁর [আল্লাহ্‌র কাজের ] সহযোগীতা করে। নিশ্চয়ই আল্লাহ্‌ শক্তিমান পরাক্রমশালী ২৮১৮।

২৮১৭। অন্যায়কারী ও অত্যাচারীর বিরুদ্ধে অস্ত্রধারণ অবশ্যই ন্যায়সঙ্গত কাজ। মক্কার কোরেশদের বিরুদ্ধে মুসলমানদের এই অস্ত্র ধারণ শুধু যে নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য প্রয়োজন ছিলো তাই-ই নয়। প্রয়োজন ছিলো সত্য ধর্মের প্রতিষ্ঠা ও অস্তিত্বের জন্য লড়াই। পবিত্র কাবা ঘরে উপসানার জন্য কোরেশদের যেরূপ অধিকার মুসলমানদের ঠিক সমঅধিকার।

মুসলমানদের সেই অধিকার থেকে শুধু যে বঞ্চিত করা হয়েছে তাই – ই নয়, তাদের সত্য ধর্মে বিশ্বাসের জন্য মক্কা থেকে বিতাড়িত করে নির্বাসন দেয়া হয়। যদি অত্যাচারীর অত্যাচারের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধারণ করা না হয় , তবে তার দ্বারা পৃথিবীর সকল ধর্মের সকল জাতির লোকেরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। শেষ পর্যন্ত এই ক্ষতির তালিকায় ইহুদী , খৃষ্টান কেহই বাদ যাবে না।

সূরা হাজ্জ্ব
সূরা হাজ্জ্ব

২৮১৮। ” .. .. .. তাঁকেই সাহয্য করে ” অর্থাৎ আল্লাহ্‌ বিধানকে প্রতিষ্ঠার সাহায্য করে। আল্লাহ্‌ সর্বদা ন্যায়ের পক্ষে। তিনি সর্ব ক্ষমতার অধিকারী। “Aziz” অর্থ সর্বোচ্চ ক্ষমতায় বা অধিষ্ঠানে, বা সম্মানে যিনি সর্বোচ্চ। যিনি তুলনাহীন। যিনি মহাশক্তিধর। যার ইচ্ছা দ্যুলোকে ভূলোকে সকলে মানতে বাধ্য। আল্লাহ্‌ নিশ্চয়ই শক্তিমান ও পরাক্রমশালী।

আরও দেখুনঃ 

সূরা হাজ্জ্ব পার্ট-৩

সূরা হাজ্জ্ব পার্ট-২

সূরা হাজ্জ্ব পার্ট-১

সূরা আম্বিয়া পার্ট-৫

সূরা নম্‌ল – উইকিপিডিয়া

Leave a Comment